অক্টোবর ৭, ২০২২

মুক্তিকন্ঠ

ভয়েস অফ ফ্রিডম ফাইটার ১৯৭১

চন্দ্রগঞ্জে আ.লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি লিটন : আবুল কাশেম চৌধুরী

ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন লিটন।

মুক্তিকন্ঠ ডেস্কঃ

চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াস উদ্দিন লিটনকে দলের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। বিগত ইউপি নির্বাচনে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করায় গত ১৬ ডিসেম্বর  নুরুল আমিনকে সভাপতির দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। এরপর গঠনতন্ত্র অনুযায়ী থানা আওয়ামীলীগের আহ্বায়কের স্বাক্ষরে একই তারিখে চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগৈর সিনিয়র সহ-সভাপতি লিটনকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়। 

চন্দ্রগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক ও দীর্ঘদিন যাবত সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালনকারী মোঃ আবুল কাশেম চৌধুরী জানান, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের যৌথ স্বাক্ষরে সদর উপজেলা আওয়ামীলীগ ভেঙ্গে আমার নেতৃত্বে চন্দ্রগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের আয়োজন করার জন্য একটি আহ্বায়ক কমিটি করা হয়েছে। উক্ত কমিটির মাধ্যমে আগামী ২৬ ফেব্রুয়ারী চন্দ্রগঞ্জ থানা আওয়ামীলীগের সম্মেলনের তারিখ নির্ধারন করা হয়েছে। সম্প্রতি জেলা আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় কেন্দ্রীয় নেতা মাহবুব উল হানিফ এর উপস্থিতিতে চন্দ্রগঞ্জ থানাসহ জেলার বিভিন্ন ইউনিটে সম্মেলনের তারিখ চুড়ান্ত করে জেলা আওয়ামীলীগ। উক্ত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সম্মেলনের দিনক্ষণ পর্যন্ত চন্দ্রগঞ্জ থানার ৯টি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগের কমিটি গঠন সংক্রান্ত সকল দায়-দায়িত্ব আহ্বায়ক কমিটির নেতা হিসেবে আমার উপরে বর্তায়। এখানে অন্য কেউ কাউকে ভারপ্রাপ্ত দায়িত্ব প্রদান বা নতুন কমিটি গঠন করার কারো কোন এখতিয়ার নাই। 

এদিকে ২২ জানুয়ারী সন্ধ্যায় চন্দ্রগঞ্জ গণমিলনায়তনে জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি এম. আলাউদ্দিনের সভাপতিত্বে চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের গুটি কয়েক নেতার উপস্থিতিতে একটি সভা করা হয়। ঐ সভায় ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকরা উপস্থিত ছিলেন না। উক্ত সভায় আওয়ামীলীগের গঠনতন্ত্রের পরিপন্থি ও পদ পদবীহীন কতিপয় নেতার ইচ্ছা অনুযায়ী জয়নাল আবেদীন (কাজল)কে চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করা হয়েছে । যাহা আওয়ামীলীগের সম্পূর্ণ গঠনতন্ত্র বিরোধী। 

আবুল কাশেম চৌধুরী এ প্রসঙ্গে আরো বলেন, “পাগলে কি না বলে, ছাগলে কি না খায়। দলীয় অনেক সিনিয়র নেতারা দলের পদ পদবী হারিয়ে পাগলের মত বক্ বক্ করছেন”।

অপর দিকে শনিবার রাতের সভায় ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সদস্য জয়নাল আবেদীনকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ঘোষণা করায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক প্রতিবাদ ও নিন্দার ঝড় উঠেছে।

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মিয়া মোঃ গোলাম ফারুক পিংকু বলেন, আমি ঢাকায় আছি। কারা কিভাবে কোন ক্ষমতা বলে সভা করে জয়নালকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি করেছে খোজ খবর নিয়ে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

শেয়ার করুন

আরও পড়তে পারেন..