মে ২২, ২০২২

মুক্তিকন্ঠ

ভয়েস অফ ফ্রিডম ফাইটার ১৯৭১

চন্দ্রগঞ্জ বাজারে গভীর রাতে এটা কিসের মহড়া? হুমকিতে ব্যবসায়ী ও জনসাধারন

মুক্তিকন্ঠ ডেস্কঃ

লক্ষ্মীপুর জেলার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বাজার হলো চন্দ্রগঞ্জ বাজার। এই বাজার নিয়ে সাধারন মানুষ, ব্যবসায়ী, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গসহ আপামর জনগণের কৌতুহলের শেষ নেই। আশেপাশের এলাকার মানুষ কেনাকাটাসহ যে কোন ছোট বড় প্রয়োজনে চন্দ্রগঞ্জ বাজারে আসে। লক্ষ্মীপুর জেলার সর্বোচ্চ দামী বাজার চন্দ্রগঞ্জ বাজার, কারন আগামী বাংলা ১৪২৯ সনের জন্য চন্দ্রগঞ্জ বাজারের ইজারা নির্ধারণ হয়েছে প্রায় ২ কোটি টাকা। সুতরাং সবার কৌতুল থাকারই কথা।

বর্তমানে আইন শৃঙ্খলার অবনতিসহ যেকোন বড় ধরনের   দূর্ঘটনা ঘটতে পারে চন্দ্রগঞ্জ বাজারে এমনটাই আশংকা বিশিষ্টজনদের। চন্দগঞ্জ বাজারে প্রায় রাতের ২/৩ বাজেও কিছু লোককে দেখা অযথায় চাদর মুড়ি দিয়ে অথবা মাস্ক পরে ঘুরাফেরা করতে।

রাতের ২/৩ টায় যদি বহিরাগত চন্দ্রগঞ্জ বাজারে অনুপ্রবেশ করে তাহলে যেকোন সময়ে বড় ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারে চন্দ্রগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন ব্যবসায়ী বলেন, কোন কারনে যদি আমরা ঢাকা থেকে রাতে ২/৩ টায় আসি তখনো আমরা চন্দ্রগঞ্জ নিউ মার্কেটের সামনে একদল মানুষকে দেখতে পাই।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চন্দ্রগঞ্জ বাজারের কয়েকজন নাইটগার্ডকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে জানায়, আমরা আসলে মুখ খুলতে পারি না। রাতে অনেককেই বাজারে দেখি যাদের এত রাতে বাজারে আড্ডা দেওয়ার কথা না।

চন্দ্রগঞ্জ বাজারের ব্যবসায়ীদের কয়েকটি সিসি টিভি ফুটেজ পর্যালোচনা করে দেখা যায় রাতের ৩টার পরেও কিছু কিছু লোককে বাজারে ঘুরাফেরা করতে দেখা যায়। যদি এই ধরনের লোকের রাত্রীকালীন আড্ডা রোধ করা না হয় তাহলে চুরি, ডাকাতির আশংকা বেড়ে যেতে পারে বলে মনে করেন অনেকেই।

এ বিষয়ে চন্দ্রগঞ্জ বাজার কমিটি, চন্দ্রগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, চন্দ্রগঞ্জ থানা প্রশাসন জরুরী পদক্ষেপ না নিলে যেকোন সময় ঘটতে পারে অনাকাঙ্খিত যেকোন ঘটনা।

শেয়ার করুন