নভেম্বর ২৬, ২০২২

মুক্তিকন্ঠ

ভয়েস অফ ফ্রিডম ফাইটার ১৯৭১

লক্ষ্মীপুরে কাঠমিস্ত্রীকে জবাই করে হত্যা চেষ্টা

আহত শওকত

মুক্তিকন্ঠ ডেস্ক:

লক্ষ্মীপুরে শওকত(৪০) নামের এক কাঠমিস্ত্রীকে জবাই করে হত্যা করার চেষ্টা করা হয়েছে।

বুধবার (২৮ সেপ্টেম্বর) রাত ১০টার দিকে চন্দ্রগঞ্জ থানাধীন  দেওপাাড়া গ্রামের চকিদার বাড়ির সামনের পুকুর পাড়ে এই ঘটনা ঘটে বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়।

জানাযায়, সন্ধ্যার পরে স্বর্ণ চুরি সংক্রান্ত একটা বিষয়ে থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকা হয় শওকতকে আর স্ত্রীসহ পরিবারের লোকজনকে। থানা থেকে বের হয়ে একই এলাকায় পাশবর্তী শশুর বাড়িতে যায়। শশুর বাড়ি বের হয়ে নিজ বাড়ির পথে যাওয়ার সময় ৮/১০ জনের মুখোশধারী অপরিচিত লোক এসে তাকে জবাই করে দিয়ে চলে যায়। পরে পাশবর্তী পাঁচপাড়া গ্রামের ধনগাজী পাটোয়ারী বাড়ির  নবী উল্ল্যার ছেলে ফয়েজ শওকতকে এই অবস্থায় দেখে সবাইকে ডাকাডাকি করলে আশেপাশের সবাই বের হয়ে আসে।

জবাই করার পর একটি ভিডিও ক্লিপে শওকতকে বলতে দেখা যায়, “কয়েকজন লোক এসে আমার মুখ, চোখ বেঁধে ফেলে এবং স্বর্ণের কথা স্বীকার করছিনা কেন বলে আমার গলা কেটে দ্রুত পালিয়ে যায়।“

শওকত দেওপাড়া গ্রামের আইনুদ্দিন হুজুরের বাড়ির মৃত আব্দুল গফুরের ছেলে, সে পেশায় একজন কাঠ মিস্ত্রী। গত কয়েকদিন আগে একই বাড়ির প্রবাসী বেল্লাল হোসেনের স্ত্রী প্রীতি থানায় একটি স্বর্ণ চুরির অভিযোগ করে, সেখানে শওকতকে সন্দেহভাজন হিসেবে উল্লেখ করা হয়।

লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. রাজিব চন্দ্র পাল জানান, আহত শওকতের গলায় উপরের চামড়ার অনেকটা কেটে গেছে। তাকে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে এখন সে আশংকামুক্ত।

ঘটনা শুনেই তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সোহেল রানা।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোসলেহ উদ্দিন জানান, “শওকতকে জবাই করার খবর পাওয়ার পর পরই ঘটনাস্থলে যাই,  শওকতকে জবাই করে আহত করার ঘটনায় যে বা যাহারাই জড়িত তদন্তসাপেক্ষে তাদের আইনের আওতায় আনা হবে।

শেয়ার করুন