অক্টোবর ২৫, ২০২১

মুক্তিকন্ঠ

ভয়েস অফ ফ্রিডম ফাইটার ১৯৭১

চন্দ্রগঞ্জে ডাকাতির মালামাল সহ ৩ ডাকাত গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ  মাত্র ৭ দিনের মাথায় তথ্যপ্রযুক্তির মাধ্যমে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জের আলোচিত ডাকাতির রহস্য উৎঘাটন করে ডাকতির মালামাল উদ্ধার সহ ৩ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করেছে চন্দ্রগঞ্জ থানা পুলিশ। চন্দ্রগঞ্জ থানা সূত্রে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

উদ্ধারকৃত মালামালসহ আটক ৩ ডাকাত (মাঝ খানে ৩জন)

গত (১৩ মার্চ) শনিবার লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার চন্দ্রগঞ্জ থানাধীন মান্দারী ইউপির দক্ষিণ মান্দারী (চতালিয়া) গ্রামের ইয়াছিন আরাফাত তুষারের বাড়িতে রাত আনুমানিক ২টার পরে ১০/১২ জনের ডাকাত দল দূর্ধর্ষ ডাকাতি করে। ঐদিনই ইয়াছিন আরাফাত বাদী হয়ে অজ্ঞাত ডাকাতদের বিরুদ্ধে চন্দ্রগঞ্জ থানায় একটি ডাকাতির মামলা করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মোঃ বেলায়েত হোসেন দায়িত্বভার পাওয়ার পর থেকে লক্ষ্মীপুর জেলার পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান পিপিএম (সেবা) এর দিকনির্দেশনায় ৭দিনের মাথায় ডাকাত দলের ৩ ডাকাতকে গ্রেপ্তার করতে সমর্থ হন। তদন্ত কর্মকর্তা সঙ্গীয় ফোর্সসহ (১৮,১৯মার্চ) ব্যাপক অভিযান পরিচালনা করিয়া লক্ষ্মীপুর সদরের পশ্চিম লক্ষ্মীপুর গ্রাম থেকে তাদেরকে গ্রেপ্তার করেন। পরে ডাকাতদের তথ্যমতে পশ্চিম লক্ষ্মীপুর এলাকা থেকে ডাকাতিকৃত ২ জোড়া স্বর্ণের কানের দুল, ৩টি স্বর্ণের আংটি, ১টি স্বর্ণের চেইন(অর্ধেক), ২টি বিদেশী কম্বল, ৩২ইঞ্চি ১টি এলইডি টিভি, ১টি স্যামসাং মোবাইল, বিভিন্ন কসমেটিক সামগ্রী ও নগদ ২৪,৫০০ টাকা উদ্ধার করা হয়। এছাড়াও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১টি কোড়াবাড়ি, ১টি জিআই পাইপ ও ১টি সিএনজি উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো সদর উপজেলার পশ্চিম লক্ষ্মীপুর গ্রামের  নুরুল ইসলামের ছেলে মোঃ তারেক প্রকাশ আজিজ(২৯), একই গ্রামের  মোঃ সামুর ছেলে মোঃ সবুজ(২৬) এবং রায়পুর উপজেলার কেরোয়া গ্রামের  মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে মোঃ মুরাদ হোসেন (৩৪)। গ্রেপ্তারকৃতদের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে এবং বাকী ডাকাতদের প্রেপ্তার বিষয়েও অভিযান অব্যাহত আছে।

চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ কে ফজলুল হক জানান, ডাকাতির ঘটনার পর থেকেই আমাদের লক্ষ্মীপুর জেলার পুলিশ সুপার ড. এ এইচ এম কামরুজ্জামান পিপিএম (সেবা) মহোদয়ের দিকনির্দেশনায় এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার(সদর সার্কেল) মিমতানুর রহমানের সার্বিক তত্বাবধানে আমরা ডাকাতদের ধরতে সমর্থ হই। তাদের থেকে ডাকাতিকৃত মালামাল উদ্ধার করা হয়েছে এবং অন্যান্য ডাকাতদের ধরার ব্যাপারে অভিযান অব্যাহত আছে। গ্রেপ্তারকৃতদের ডাকাতির মামলায় আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হবে।

শেয়ার করুন